পাকিস্তানে তিন দফায় তিন সংস্করণই খেলবে বাংলাদেশ

0
38

বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর নিয়ে টানাপোড়েন কেটেছে অবশেষে। টি-টোয়েন্টি ছাড়া আর কোনো সিরিজে খেলতে রাজী ছিল না বাংলাদেশ। কিন্তু পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) সংবাদ বিজ্ঞপ্তি জানাচ্ছে, তিন দফায় পাকিস্তানে গিয়ে তিনটি সংস্করণেই খেলবে বাংলাদেশ!

দুবাইয়ে মঙ্গলবার আইসিসি গভর্নেন্স কমিটির সভার ফাঁকে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে পিসিবি সভাপতি এহসান মানির। আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বোর্ড এই সফর নিয়ে একমত হতে পেরেছে বলে জানানো হয়েছে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

পিসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, আগামী ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি লাহোরে তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। ওই সিরিজ খেলে দেশে ফিরে ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে টেস্ট খেলতে দল আবার যাবে পাকিস্তানে। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ হবে রাওয়ালপিণ্ডিতে।

বাংলাদেশের তৃতীয় দফার সফর এপ্রিলে। ৩ এপ্রিল করাচিতে একটি ওয়ানডে খেলবে দুই দল। তার পর একই শহরে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের আরেকটি টেস্ট ৫ এপ্রিল থেকে।

সফর নিয়ে বাংলাদেশের সবশেষ যে অবস্থান ছিল, সেখান থেকে নাটকীয় পরিবর্তনই হয়েছে বলতে হবে দুবাইয়ের সভায়। রোববার বোর্ড সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান জোর গলায় বলেছিলেন, পাকিস্তানে টি-টোয়েন্টি ছাড়া অন্য কোনো কিছু খেলা আপাতত সম্ভব নয় বাংলাদেশের পক্ষে। যুক্তরাষ্ট্র-ইরানের সাম্প্রতিক যুদ্ধাবস্থা ও মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক অস্থিরতা বিবেচনায় বিসিবির প্রতি বাংলাদেশ সরকারের পরামর্শ ছিল, সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য গিয়ে শুধু টি-টোয়েন্টি খেলে আসা। অথচ সেখান থেকে সরে এসে বাংলাদেশ টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি তো খেলতে যাচ্ছেই, আইসিসি ভবিষ্যৎ সূচির বাইরে থেকে যোগ হয়েছে একটি ওয়ানডে।

কূটনৈতিক এই বিজয়ে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত পিসিবি সভাপতি এহসান মানি।

“খেলাটির স্বার্থে ও গর্বিত দুটি ক্রিকেট জাতির স্বার্থে দুই পক্ষের আপোসে সমস্যার সমাধান করতে পারায় আমি সন্তুষ্ট। আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরকে আমি ধন্যবাদ জানাই তার নেতৃত্বের জন্য ও এই দুই দেশে ক্রিকেট এগিয়ে যাওয়ার পথ আরও সুগম করে দেওয়ার জন্য।” 

এতদিনের অবস্থান থেকে সরে আসতে হলেও বিসিবির বিবৃতিতে নাজমুল হাসান জানালেন সন্তুষ্টির কথা।

“আমাদের অবস্থান অনুধাবন করার জন্য পিসিবিকে অবশ্যই ধন্যবাদ জানাতে হয়। আমরা সন্তুষ্ট যে পারস্পরিক সমঝোতায় গ্রহণযোগ্যে একটি সমাধানে পৌঁছানো গেছে। আইসিসি ভবিষ্যৎ সফরসূচিকে যে আমরা আন্তরিকভাবে সম্মান করি, সেটির উজ্জ্বল উদাহরণ এটি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here