পণ্য রপ্তানিতে বিশেষ দৃষ্টি প্রতিবেশী দেশে : প্রধানমন্ত্রী

0
53

শাওন মুন্সী:

রপ্তানি আয় বাড়াতে পণ্য বৈচিত্র্যে জোর দেওয়ার পাশাপাশি নতুন বাজারের সন্ধানে প্রতিবেশী দেশে বিশেষ দৃষ্টি দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রপ্তানির ক্ষেত্রে আমি বলব, একটা-দুইটা পণ্যের ওপর নির্ভরশীলতা না। আরো অধিক পরিমাণে পণ্য যেন আমরা উৎপাদন করতে পারি, রপ্তানি করতে পারি। আবার দেশের বাজারেও বা প্রতিবেশী দেশগুলোতে যাতে সেই পণ্যটা প্রয়োজন হয় সেদিকে আমরা বিশেষভাবে দৃষ্টি দিচ্ছি।’

‘এখন ডিপেস্নামেসিটা হয়ে গিয়েছে ইকনোমিক ডিপেস্নামেসি। এখন আর শুধু পলিটিক্যাল দিক দেখলে হবে না। কাজেই ব্যবসায় বাণিজ্য সম্প্রসারণ করা যায় কীভাবে, নতুন নতুন বাজার খুঁজে পাওয়া যায় এবং নতুন নতুন পণ্য আমরা যাতে রপ্তানি করতে পারি সেদিকে বিশেষভাবে দৃষ্টি দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছি।’

তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে বিশেষ জোর দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা যত বেশি ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন, ব্যবহার এবং রপ্তানি করতে পারব, আমাদের অর্থনীতিতে তা তত বেশি অবদান রাখবে।’

‘আমি মনে করি আইসিটি সেক্টরটাই আমাদের সব থেকে বড় একটা সেক্টর হবে ভবিষ্যতে। এই পণ্য রপ্তানি করে আমরা বিশাল অংকের অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হব।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত কূটনৈতিক ও বিদেশি ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘উইন-উইন পরিস্থিতির জন্য ব্যবসার সুবিধার্থে বিনিয়োগ ও সোর্সিংয়ের জন্য বাংলাদেশকে যেন সকলে বেছে নেন- সেটাই আমার আহ্বান থাকবে।’

সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা নিয়ে বাংলাদেশের উন্নয়নের যাত্রা নির্দিষ্ট করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সেজন্য ব্যবসায় বাণিজ্য, বিনিয়োগ, শিল্পায়ন, খাদ্য উৎপাদনসহ সবদিকে লক্ষ্য রেখে কাজ চলছে। বিনিয়োগ ও ব্যবসায় বাণিজ্য সহজ করতে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের মধ্যে দেশজুড়ে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের কথা বিশেষভাবে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

তৃণমূল মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করার সরকারের লক্ষ্যের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘আমাদের যত উৎপাদন, ব্যবসায়, বাণিজ্য যাই আমরা করি, দেশের মানুষের ক্রয়ক্ষমতা আমাদের বাড়াতে হবে।’

অন্যদের মধ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদ, এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম ও বাণিজ্য সচিব মোহাম্মদ জাফর উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here