করোনা মোকাবেলায় জার্মানির সাফল্য

0
103

শনিবার একদিনে আরো প্রায় ৪৯ হাজার আক্রান্তের মধ্য দিয়ে করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৪৫ হাজার ১৫৮ জনে। তার মধ্যে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৩০ হাজার জনের। এখন পর্যন্ত চিকিৎসা নিয়ে ১ লাখ ৩৯ হাজার ৫৫০ জন মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

সর্বাধিক প্রায় ১২ হাজার একদিনে আক্রান্ত বেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ ল্যাখ ১৫ হাজার ৯৮৬ জনে। এদিকে গতকাল শনিবার বিশ্বজুড়ে আরো ২ হাজার ৫৬৭ জনের মৃত্যু ঘটেছে।

সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে ৮৮৯ জনের। এর ফলে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এরপর স্পেনে ৬৭৪, ব্রিটেনে ২৬০, যুক্তরাষ্ট্রে ২৪১, ইরানে ১৩৯, হল্যান্ডে ৯৩, বেলজিয়ামে ৬৪, জার্মানিতে ৫২, পর্তুগালে ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে, মৃত্যু হার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে করোনা মোকাবেলায় সবচেয়ে সফল দেশ হচ্ছে জার্মানি। ইউরোপের বাকি দেশগুলোর তুলনায় এগিয়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

খানিকটা স্বস্তি জার্মানিতে! শতাংশ ও পরিসংখ্যানের বিচারে করোনার গ্রাসে জার্মানিতে মৃত্যুর হার অনেকটাই কম। ইতালিতে জনসংখ্যার বিচারে বেশির ভাগের গড় বয়স, ৬৩। সেখানে জার্মানিতে গড় ৪৭ বছর। সেই দিক থেকে জার্মানিতে বয়স্কদের সংখ্যা কম। তার জেরে জার্মানিতে করোনা আক্রান্ত বয়স্কদের সংখ্যাও তুলনামূলকভাবে অন্যান্য দেশের থেকে কম। ফলে, করোনায় জার্মানিতে মৃতের সংখ্যা অনেকটাই কম।

করোনার প্রকোপ ইওরোপ জুড়ে ছড়াতেই সতর্ক ছিল জার্মানি। ফ্রান্স, ইউকে, স্পেনে যে সংখ্যক কোভিড ১৯ টেস্টিং হয়েছে, সেই সংখ্যাগুলো যোগ করলে যা দাঁড়ায়, তার চেয়েও বেশি সংখ্যক কোভিড ১৯ টেস্টিং করেছে জার্মানি।

প্রায় ১ লাখ ৬৭ হাজার নাগরিকের করোনা টেস্ট করেছে ইওরোপের এই দেশ। জানা গিয়েছে চিকিৎসার ধাঁচ নিয়েও পরীক্ষা নিরীক্ষা করেছে জার্মানি। কোভিড ১৯ রুখতে দেশের একাংশেই শুধু চিকিৎসা ব্যবস্থা বা হাসপাতালগুলিকে কুক্ষিগত করেনি সেদেশ। সারা দেশে এমন হাসপাতালের সংখ্যা বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে পরিষেবা সকলেই পেয়েছেন। আর এভাবেই মৃত্যুমিছিল খানিকটা রোধ করেছে জার্মানি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here